বিশেষ বিজ্ঞপ্তি

বিশেষ বিজ্ঞপ্তি

 

বর্তমান ক্যাম্পাসের পরিস্থিতি পূর্ববর্তী সকল অস্থিতিশীলতা থেকে খুবই ভয়াবহ একথা অস্বীকার করার কোনো উপায় নাই। আমরা সবাই ই গভীরভাবে উদ্বিগ্ন তাতে। তবে আমরা প্রাক্তন প্রতিটা ছাত্রকে প্রতিনিধিত্ব করছি যেখানে, অনেকগুলো দায়িত্ব আমাদের উপর এসে বর্তায়। তাই হয়ত আমাদের এই বিবৃতি দিতেও এতটা সময় নিতে হয়েছে। তবে ভাবতে ভালো লাগছে যে ক্যাম্পাসের এই নোংরামি আর দুর্দিনেও সবাই টেকনার উপর অবিচল আস্থা রেখে চলেছে, যা আমাদের আশান্বিত করছে। হয়তো বিগত দিনে টেকনা তার সততা ও নিরপেক্ষতা বজায় রেখে অত্যন্ত ধৈর্যের সাথে সকল প্রাক্তন ছাত্রদের প্রতিনিধিত্ব করেছে বলেই তার সুফল আজকের এই বিশ্বাস জ্ঞাপন।

টেকনার বর্তমান কমিটি দায়িত্ব নেওয়ার সাথে সাথেই স্পষ্ট করে জানিয়ে দিয়েছিল যে এই ছোট ক্যাম্পাসে রাজনীতির কোনো প্রয়োজন নেই। ক্যাম্পাসে টেকনা কমিটির প্রথম শুভেচ্ছা অনুষ্ঠানে প্রেসিডেন্ট হৃদয় হীরা তার বক্তব্যে অত্যন্ত সুন্দর ভাবে উপস্থাপন করেন তাদের দৃঢ় অবস্থান। কিন্তু সেই আহব্বান আর অনুরোধ চলমান ব্যাচের ছাত্ররা যেমন গুরুত্ব দিয়ে দেখেনি তেমনি করে সাবেক কিছু ছাত্রও হয়ত তা লঙ্ঘন করেছে। আশ্চর্যজনকভাবে আরও দেখা গেলো অনেকেই প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষ ভাবে জড়িয়ে গেলো এবং যার ভয়াবহ পরিনতি আমরা আজ দেখতে পাচ্ছি।
টেকনা সুস্পষ্টভাবে কখনোই চায় না চলমান ব্যাচের নীতিনির্ধারনে কোনো ধরনের হস্তক্ষেপ করতে। টেকনা সাংগঠনিক ভাবেই এখানে ততটাই স্বচ্ছতা রেখে এসেছে। তাই টেকনা দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করে চলমান ছাত্রদের উপর সাবেক ছাত্রদের সুন্দর অথবা কুৎসিত হস্তক্ষেপ তাদের জন্য সবসময়ই ভয়ংকর, কোনদিনই এর কোনো সুফল আসেনি,
বর্তমানে আসছেও না এবং অবশ্যই ভবিষ্যতেও আসবে না। বড়-ছোট ভাইদের মধ্যে “সম্পর্কের বিনিময়” এবং “হস্তক্ষেপ” এই দুটো বিষয়ের পার্থক্য না বুঝতে পারা, এই দুটির সীমানা চিহ্নিত করতে না পারাটাই আজকের দিনের ব্যর্থতা। টেকনা খুব দৃঢ়ভাবে জানাতে চায়, বিগত দিনের মতই ক্যাম্পাসের চলমান রাজনৈতিক অথবা ব্যক্তিস্বার্থের দ্বন্দে কোনো রকম হস্তক্ষেপ করতে চায় না । টেকনা বিশ্বাস করে চলমান ছাত্রদের মিলিত উদ্যোগ, সমঝোতার মানসিকতা, মাননীয় অধ্যক্ষের সরাসরি দৃঢ় শাসন এই সংকট বর্তমান এবং ভবিষ্যতের সঠিক রুপরেখা দিবে।

তাহলে কি টেকনা দায় এড়িয়ে গেলো?
না দায় এড়াতে এই সংগঠন নয়! আমাদের ইফতার মাহফিলে আগত রানিং ব্যাচের সকল ছাত্র এবং সন্মানিত অধ্যক্ষ স্যারের সাথে টেকনা টিম দীর্ঘক্ষণ আলোচনায় বসেছে। ক্যাম্পাস চলমান ছুটির পর শুরু হতে হতেই সন্মানিত অধ্যক্ষ স্যারের নেতৃত্বে টেকনা টিম, রানিং ব্যাচের ছাত্ররা ও এলাকার অন্যান্য সন্মানিত ব্যাক্তিদের সাথে একটি আলোচনায় বসার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। টেকনা বিশ্বাস করে মাননীয় অধ্যক্ষ স্যারের মাধ্যমে আমরা আবারও সুন্দর,শান্তিপূর্ন ক্যাম্পাস ফিরে পাবো।

একথা স্পষ্ট করে টেকনা কার্যনির্বাহী কমিটি বলতে চায় এই ধরনের আলোচনার পরিস্থিতি আমরা চাই নি এবং টেকনা কখনোই এই হস্তক্ষেপকে ভালোভাবে দেখে না। কিন্তু এই সংকটে আমাদের বিবেকের কাছে আমাদের সাংগঠনিক উদ্দেশ্য হেরে গেলো এবং আশা করি এটাই আমাদের প্রথম ও শেষ হস্তক্ষেপ হবে। অদূর ভবিষ্যতেও এই ধরনের পরিস্থিতিতে টেকনার অবস্থান স্পষ্টত একই থাকবে বলে আমাদের বিশ্বাস।

জয়তু টেকনা

Related Articles

ইন্টার্নশিপ গাইডলাইন।। পার্ট ১ || Factory Selection

সামনেই আমাদের অষ্টম ব্যাচের ইন্টার্ন। গতবছরে এই সময়ে যখন আমাদের ইন্টার্ন আসলো তখন ইন্টার্নে যাওয়ার আগে কিংবা ইন্টার্ন এ ঢুকে আমাদের করনীয় কি তা সম্পর্কে…

অ্যালামনাই: শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সম্পদ এবং সাফল্যের চাবিকাঠি

অ্যালামনাই যেকোনো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের জন্য একটি অমূল্য সম্পদ। তারা প্রতিষ্ঠানের ঐতিহ্য, সাফল্য এবং সুনামের প্রতীক। একটি দৃঢ় অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশন গড়ে তোলার মাধ্যমে, প্রতিষ্ঠানগুলি এই সম্পদকে কাজে…

টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং ছাত্রদের জন্য বৃত্তি সুযোগ অন্বেষণ

অনুদান এবং বৃত্তি নিশ্চিত করা আন্তর্জাতিক শিক্ষা অর্জনের আর্থিক বোঝাকে উল্লেখযোগ্যভাবে উপশম করতে পারে। একটি সাধারণ ভুল ধারণা থাকা সত্ত্বেও যে আন্তর্জাতিক ছাত্রদের জন্য স্কলারশিপ…

প্রতি ছয় মাসে ০.৫ শতাংশ কমবে পোশাক রপ্তানিতে নগদ সহায়তা

প্রতি ছয় মাসে ০.৫ শতাংশ কমবে পোশাক রপ্তানিতে নগদ সহায়তা ২০২৬ সালের জুলাই মাসে রপ্তানিতে দেওয়া নগদ প্রণোদনার পুরোটা প্রত্যাহার করে নেবে সরকার। ২০২৬ সালের…

বৈশ্বিক পোশাক রপ্তানি বাজারে বাংলাদেশ ভিয়েতনামের সাথে ব্যবধান বাড়াচ্ছে

বৈশ্বিক পোশাক রপ্তানি বাজারে বাংলাদেশ তার ঘনিষ্ঠ প্রতিদ্বন্দ্বী ভিয়েতনামের সাথে ব্যবধান বাড়িয়েছে এবং চীনের পর পোশাকের সরবরাহকারী হিসেবে দ্বিতীয় অবস্থান ধরে রেখেছে। এক্সপোর্ট প্রমোশন ব্যুরো…

Subscribe
Notify of
guest

0 Comments
Inline Feedbacks
View all comments